খালেদা জিয়ার জামিন পাওয়ার সুযোগ আছে: ড. কামাল

উচ্চ আদালতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন পাওয়ার সুযোগ আছে বলে জানিয়েছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন। 

মঙ্গলবার ড. কামাল হোসেনের মতিঝিল চেম্বারে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, অবশ্যই সুযোগ আছে। এর থেকে পরিস্কার করে বলার কিছু নেই। মানবিক কারণে খালেদা জিয়া জামিন পাওয়ার যোগ্য। আজকের সভার সিদ্ধান্তে সেটা স্পষ্ট করে বলা হয়েছে।

এর আগে ফ্রন্টের সিদ্ধান্ত জানিয়ে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘স্টিয়ারিং কমিটির সভায় কারাবন্দি তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার সর্বশেষ শারীরিক অবস্থা নিয়ে আলোচনা হয় এবং উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়। যে মামলায় খালেদা জিয়াকে সাজা দেওয়া হয়েছে তা উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। সর্বশেষ শারীরিক অবস্থা বিবেচনায় তার আশু মুক্তি দাবি করছি। আজকের সভায় প্রধান দাবি এটাই।’

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেন, গত ২২ নভেম্বর তারা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেছিলেন। তিনি অত্যন্ত সরল মনে তাদের বলেন, অবশ্যই দেখা করতে পারবেন। তিনি নীতিগতভাবে দেখা করার অনুমতি দিয়েছেন। তবে দাপ্তরিক নিয়ম রক্ষার জন্য আইজি প্রিজনের কাছে এর দায়িত্বভার দেন।

আ স ম রব বলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এমন আশ্বাসে এ পর্যন্ত আইজি প্রিজনের কাছে বহুবার ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে প্রতিনিধি পাঠিয়েছি। কিন্তু তারা কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি। তার মানে, তারা খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করার সুযোগ দিচ্ছেন না।

ড. কামাল হোসেনের সভাপতিত্বে বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন গণস্বাস্থ্য সংস্থার ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান, গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি অধ্যাপক আবু সাইয়িদ, অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, বিকল্পধারার অধ্যাপক নুরুল আমিন বেপারী, জেএসডির মো. সিরাজ মিয়া প্রমুখ।